fbpx

আসুন বানাই কম খরচে গোল্ডফিশ ট্যাঙ্ক

বাংলাদেশের মানুষ যাদের অ্যাকুরিয়াম সম্পর্কে বেশী ধারনা নেই তারা অ্যাকুরিয়াম ফিশ বলতে গোল্ডফিশই বুঝে থাকেন। কিন্তু সমস্যা হল গোল্ডফিশ কিভাবে পালতে হবে বা গোল্ডফিশের জন্য পারফেক্ট ট্যাঙ্ক সাইজ কত হবে অথবা গোল্ডফিশের সাথে অন্য কোন মাছ আদৌ রাখা যায় কি যায় না সে ব্যাপারে তাদের কোন আইডিয়াই নাই।

এখানে প্রথমেই বলে রাখা জরুরী যে গোল্ডফিশের সাথে অন্য মাছ রাখা তো বহুদূরের কথা এমনকি একজাতের গোল্ডফিশের সাথে আপনি অন্য যাতের গোল্ডফিশ রাখতেই পারবেন না।

১.ট্যাংক সাইজঃ
…………………….

একটা ফ্যান্সি গোল্ডফিশের জন্য মিনিমাম লাগে ২০ গ্যালন পানি। মানে প্রায় ৭৫ লিটার পানি। একটা সিংগেল টেল গোল্ডফিশ বা কোমেট/কার্পের ক্ষেত্রে লাগে কমপক্ষে ৪০ গ্যালন বা ১৫১ লিটার পানি।
এরপর প্রতি একটা মাছের জন্য ফ্যান্সি গোল্ডফিশের জন্য ১৫ গ্যালন, সিংগেল টেলের জন্য ৩০ গ্যালন পানি অ্যাড করা লাগবে । অর্থাৎ দুইটা ফ্যান্সি গোল্ডফিশ রাখতে গেলে লাগবে মিনিমাম ৩৫ গ্যালন এবং দুইটা সিংগেল টেলের জন্য ৭০ গ্যালন পানি। তাইলে বুঝেন জারে রাখার ভয়াবহতা কতটুকু।

২. ফিল্ট্রেশনঃ
…………………
মেকানিকাল এবং বায়োলজিক্যাল, উভয় ফিল্ট্রেশনই আবশ্যক। গোল্ডফিশের পাকস্থলী থাকেনা বলে এরা খাবার পেটে রাখেনা, সারাদিন পায়খানা করে। সুতরাং অত্যন্ত ভালো ফিল্ট্রেশন লাগবে। ট্যাংক ওয়াটার ভলিউমের তুলনায় কমপক্ষে ৫ গুণ বায়োলজিক্যাল ফিল্ট্রেশন নিশ্চিত করতে হবে (অর্থাৎ প্রতি ঘন্টায় যেন কমপক্ষে পাঁচবার ট্যাংকের সম্পূর্ণ পানি ফিল্টারের মধ্যে দিয়ে যায়)। মেকানিকালের ক্ষেত্রে ১০ গুণ করা যেতে পারে। সাম্প, ক্যানিস্টার, টপ ফিল্টার, হব ফিল্টার ইত্যাদি ফিল্টারগুলার মধ্যে আপনার বাজেট ও ট্যাংক রিকোয়ারমেন্ট অনুযায়ী এক বা একাধিক ফিল্টার ব্যবহার করতে পারেন। স্পঞ্জ বা পাওয়ারফিল্টার মেইন ফিল্টার হিসেবে গোল্ডফিশ ট্যাংকে ইউজলেস, অ্যাডিশনাল ফিল্টার হিসেবে দেয়া যায় অবশ্য। আন্ডারগ্রাভেল ফিল্টার বা ট্রে ফিল্টার বলে কাঁটাবনের দোকানীরা যেটা ধরায়ে দেয় ওইটা দেয়া যাবেনা।
আর হ্যাঁ, অবশ্যই এক্সট্রা এয়ারস্টোন দিতে হবে এয়ারপাম্পের সাথে কানেক্ট করে।

 

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.