fbpx

আসুন তৈরি করি একটি বেট্টা ট্যাঙ্ক !

Betta tank Setup

বেট্টা ফিশ(সিয়ামিজ ফাইটার ফিশ যেটাকে বাংলাদেশের লোকাল মার্কেটে ফাইটার বা ফাইটিং ফিশ বলে থাকে) অনেক জাতের হয়। একেবারে সস্তা বেট্টাফিশের জাত হচ্ছে ভেইলটেইল। একটু দামী জাতের বেট্টাও আছে যেমন ফুলমুন, ক্রাউনটেইল, ডাম্বো ইয়ার ইত্যাদি। সাধারনত যারা বেট্টাফিশের জন্য বেট্টাট্যাঙ্ক করে থাকেন তারা একটু দামি এক্সক্লুসিভ জাতের বেট্টাই নিজেদের ট্যাঙ্কে রেখে থাকেন। আর যেহেতু বেট্টা প্লান্টস খুব পছন্দ করে তাই বেট্টার ট্যাঙ্কটি সাধারনত প্লান্টেড করা হয়ে থাকে।

আজকে আমরা আলোচনা করবো কিভাবে খুব সহজে একটি প্লান্টেড বেট্টা ট্যাঙ্ক আপনি তৈরি করতে পারেন

ট্যাঙ্ক : বেট্টা ট্যাঙ্ক হিসাবে বেছে নিতে পারেন আমাদের এই ১২ কিউবের রেগুলার গ্লাসের এই ট্যাঙ্কটি

https://aquarium.com.bd/product/12x12x12-aquarium-glass-tank/

সাবস্ট্রেট : ১২ কিউবে সাবস্ট্রেট হিসাবে দিতে পারেন দুইকেজি বালু বা স্যান্ড । সেটি পেয়ে যাবেন নীচের লিংক থেকে

https://aquarium.com.bd/product/brown-sand2kg-pack/

ফিল্টার : আপনার বেট্টা ট্যাঙ্কটির পানি পরিস্কার অর্থাৎ ফিল্টারেশন এবং সার্ফেস অ্যাজিটেশনের মাধ্যমে অক্সিজেন তৈরির জন্য আপনি এই ফিল্টারটি বেছে নিতে পারেন।

https://aquarium.com.bd/product/aquarium-internal-power-filter-sobo-wp-1200f/

প্ল্যান্টস : হর্নওয়াট, জাভা ফার্ন, অ্যামাজন সোর্ড এই প্ল্যান্টগুলি শুধু স্যান্ড বা বালুতে হয়। তাই দুই পট এগুলির যেকোন একটি কিনে শুরু করতে পারেন।

লাইট : প্ল্যান্টেড ট্যাঙ্কে লাইট আপনার লাগবেই। আপনার এই ট্যাঙ্কের জন্য সবচে ভাল হবে এই লাইটটি।

https://aquarium.com.bd/product/aquarium-led-light-1ft/

রক : ট্যাঙ্কটিতে একটি দারুণ লুক দিতে কিছু এলসি রক দেওয়া যেতে পারে।

নিউট্রিক্যাপ ক্যাপসুল: অল্প দামী এই পুষ্টিবর্ধক ক্যাপসুলগুলি বালিতেই আপনার প্ল্যান্টসের খুব সহজেই দারুণ গ্রোথ এনে দিতে পারবে।

ব্যাস হয়ে গেল আপনার বেট্টা ট্যাঙ্ক। এবার ৬ সপ্তাহ সাইক্লিং করার পালা।

সাইক্লিং শেষ হলে নিতে পারেন একটি সুন্দর দেখে ভাল জাতের( ফুলমুন বা ক্রাউনটেইল) বেট্টা ! নীচের লিংক দেখুন।

এখানে উল্লেখ্য যে ছেলে বেট্টাফিশ প্রধানত অ্যাকুয়ারিয়াম হবিতে পপুলার। তবে ছেলে বেট্টাফিশ একটাই রাখতে হয়। একাধিক রাখলে এরা লড়াই করে এবং শেষে দুটি বেট্টাই মারা যায়। এমনকি ব্রিডিং পিরিয়ড ছাড়া একটি মেইল ও আরেকটি ফিমেইল বেট্টা কখনো একসাথে রাখা যায় না।

তবে শুধু ফিমেইল বেট্টার কথা আলাদা। আপনি চাইলে এই ট্যাঙ্কটিতে একসাথে ৩-৪টি ফিমেইল বেট্টা রেখে একটি সরোরিটি ট্যাঙ্ক বানাতে পারেন।

পানি পরিবর্তন ও বেট্টার ফুড :
পানি পরিবর্তনের সময় অবশ্যই আপনাকে অ্যান্টি ক্লোরিন ব্যাবহার করতে হবে। অবশ্য শুধু বেট্টা ফিশ না। যে কোন মাছের ট্যাঙ্কেই পানি পরিবর্তন করে নতুন পানি দেবার সময় অ্যান্টি ক্লোরিন দিতে হয়। কেননা ঢাকা ও ঢাকার বাহিরে আমাদের ট্যাপের পানিতে প্রচুর পরিমানে ক্লোরিন থাকে। যা মাছের জন্য ক্ষতিকর। তাই অ্যান্টি ক্লোরিন ব্যাবহার করে পানিতে থাকা ক্লোরিন দূর করতে হয়।

কাজেই নির্দিধায় ব্যাবহার করতে পারেন নীচের অ্যান্টি ক্লোরিনগুলি থেকে যেকোন একটি

আর বেট্টা মূলত লাইভ ফুড খুব পছন্দ করলেও তার জন্য প্যাঁকেটজাত খাবার সরবরাহ করাটাই উত্তম। নীচের লিংকে যেই খাবারটি দেওয়া আছে সেটা বেট্টার জন্য সেরা খাবার।

তবে বাস্তব অভিজ্ঞতার নীরিখে এখানে একটা কথা উল্লেখ্য যে বেট্টার সাইজ কিছুটা ছোট হলে সে তখন আর এই খাবারগুলি খেতে পারে না, মুখে নিয়ে ফেলে দেয়। বিশেষ করে ফিমেইল বেট্টার ক্ষেত্রে এই সমস্যাটা খুব বেশী। এই সমস্যা সমাধানে দিতে পারেন নীচের খাবারটি

হ্যাপি ফিশ কিপিং !

3 Comments

  1. […] আসুন তৈরি করি একটি বেট্টা ট্যাঙ্ক ! […]

    Reply
  2. […] আসুন তৈরি করি একটি বেট্টা ট্যাঙ্ক ! […]

    Reply

Leave a Comment

Your email address will not be published.