fbpx

ফাউন্টেইন গার্ডেন

আপনার মনোরম বাগানের সৌন্দর্য বহুগুণ বাড়িয়ে দিতে পারে একটি ঝর্ণা । বাগানের সাথে একটি ঝর্ণা সংযুক্ত করলে বাগানের পুরো চেহারাটাই যেন রাতারাতি পাল্টে যায়। নিয়ে আসে এক বাড়তি আভিজাত্য ও অনাবিল সৌন্দর্য।

যে ৪টি কারনে করতে পারেন একটি ফাউন্টেইন গার্ডেন

১। বাগানে ফাউন্টেন থাকলে শান্তির নিরবতার মাঝে কানে আসবে পানি প্রবাহের এক ঐস্বরিক শব্দ। প্রাচীন যুগে রাজাবাদশাহ সহ বিভিন্ন মনিষীগণ বাগানে ফাউন্টেইন রাখতেন শুধুমাত্র এই ঐশ্বরিক শব্দ উপভোগের জন্য। ফাউন্টেনের পানির এই অদ্ভুত সুদিং শব্দ আমাদের স্ট্রেস দূর করতে সহায়তা করে। এমনকি আধুনিক যুগেরও বিভিন্ন মেডিটেশনে পানি প্রবাহের এই শব্দ ব্যাবহার করা হয়।

কাজেই একটি ফাউন্টেইন গার্ডেন আপনার সারা দিনের যাবতীয় অবসাদ ভুলিয়ে দিতে পারে।

২। আপনি যদি একজন পাখিপ্রেমী হয়ে থাকেন এবং আশা করেন যে আপনার বাগানে পাখির মেলা বসবে, পাখিরা খেলা করবে তাহলে বাগানে ফাউন্টেইন আবশ্যক। ফাউন্টেইন খুব সহজেই পাখিদের আকর্ষণ করতে পারে। আমাদের দেশের ফিঙে, চড়ুই ইত্যাদি পাখি খাবারের দিকে যতটা আকর্ষিত হয় তার থেকেও বেশী হয় পানির দিকে। বাগানে একটি ফাউন্টেন বসালে সেখানে সারাদিন উপভোগ করতে পারবেন পাখিদের মেলা।

৩। আপনার যদি অন্য পোষা প্রানী থেকে থাকে তাহলে দেখবেন তারাও আপনার ফাউন্টেইনটি পছন্দ করছে। বিশেষ করে যাদের কুকুর পালার অভিজ্ঞতা আছে তারা জানবেন যে গ্রীষ্মের দুপুরে কুকুরের সাথে একটি জলাশয়ের বন্ধন গড়ে উঠে। আপনার প্রিয় কুকুরকে নিরাপদ পানির একটি সোর্স দিতে হলেও বসাতে পারেন ফাউন্টেইন।

৪। আপনার রেস্টোরেন্ট বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যদি গড়ে তুলতে পারেন একটি ফাউন্টেইন গার্ডেন তাহলে সেটা আপনার ব্যবসায়িক ক্ষেত্রেও দারুণ উপকারে আসবে। এই ফাউন্টেইন গার্ডেন হতে পারে আপনার ক্রেতাদের জন্য একটি দারুণ আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। শুধুমাত্র আপনার প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের জন্য নয়, এম্বিয়েন্স অর্থাৎ পরিবেশের জন্যও বারবার আপনার দোকানে কাস্টমার সমাগম হতে পারে এটা বলাই বাহুল্য।

ঢাকা এবং চট্রগ্রামের বেশ কিছু রেস্টোরান্ট যাদের আউটডোরে ফাউন্টেইন গার্ডেন আছে তাদের থেকে সংগ্রহ করা উপাত্তে দেখা গেছে ফাউন্টেইন সংলগ্ন আউটডোর সিটিং এই মানুষ বেশী বসতে চায়। এই সমীক্ষায় আরো দেখা যায় যে অন্য রেস্টোরান্টগুলির তুলনায় ফাউন্টেইন সমৃদ্ধ রেস্টোরান্টগুলির সেল অনেক অনেক বেশী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *